ঢাকা, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৮, রবিবার রাত; ০৭:৩৩:২২
বার্তা »
  

পরিচিতি ও নামঃ


 

নুমান,উপনাম-আবু হানিফা। এ নামেই তিনি পরিচিতি লাভ করেন। পিতার নাম- সাবিত। তিনি একজন তাবেয়ী ছিলেন।

জন্মঃ

তিনি ৮০ হিজরীতে ৭০০ খ্রীঃ মুতাবিক কুফায় জন্মগ্রহণ করেন।

বংশধারাঃ

আবু হানিফা নমান ইবনে সাবিত ইবনে যুতী আত-তাইমী। আবু হানিফার পিতা সাবিত ছোটবেলায় হযরত আলী (রা·)এর খেদমতে আগমন করেন। আলী (রা·) তার বংশধরের জন্য বরকতের দোয়া করেন।

শিড়্গাজীবনঃ

তিনি সতের বছর বয়সে জ্ঞানার্জনে আত্ননিয়োগ করেন। প্রসিদ্ধ সাহাবী হযরত আনাস (রা·) কূফায় আগমন করলে তিনি তার সাথে সাড়্গাত করে তাবেয়ী হওয়ার সৌভাগ্য লাভ করেন। তিনি হযরত হাম্মাদ (র) এর নিকট উপস্থিত হয়ে দীর্ঘ দশ বছরকাল ফিকহ শাস্ত্র গবেষণা করে ইমাম আযম উপাধিতে ভূষিত হন।

গুণাবলীঃ

ইমাম আবু হানিফা অসংখ্য গুণের অধিকারী ছিলেন। তিনি একাধারে ৩০ বছর রোযা রেখেছেন এবং ৪০ বছর যাবৎ রাত্রে ঘুমাননি। প্রতি রমযানে ৬১ বার পবিত্র কুরআন মজিদ খতম করতেন।অনেক সময় এক রাকাতেই কুরআন মজিদ এক খতম দিতেন। তিনি ৫৫ বার হজ্জ করেছেন। ৯৯ বার আলস্নাহ তায়ালাকে স্বপ্নে দেখেছেন।

তার সম্পর্কে ইমাম শাফেয়ী (র) এর উক্তিঃ আন্‌নাসু ইয়ালুন ফিল ফিক্‌হি আলা আবি হানিফা

অর্থাৎঃমানুষ ফিক্‌হ শাস্ত্রে ইমাম আবু হানিফা (র) এর পরিবার।

ইমাম মালেক (র) কে জিজ্ঞেস করা হলো। আপনি কি ইমাম আবু হানিফা (র) কে দেখেছেন? তিনি প্রত্যুত্তরে বলেন,হ্যাঁ আমি এমন এক ব্যক্তিকে দেখেছি তিনি যদি এই স্তôম্্‌ভটিকে স্বর্ণ বলে সাব্যস্তô করতে চান,তবে যুক্তি দিয়ে তা প্রমান করতে পারবেন।

 

রচনাবলীঃ

তিনি অসংখ্য গ্রন্থ রচনা করেছেন। এর মধ্যে প্রসিদ্ধ হলোঃ ১·মুসনাদে আবু হানিফা ২·আল ফিকহুল আকবর ৩·ওয়াসিয়াতু আবু হানিফা ৪·কিতাবুর আছার লি আবি হানিফা।

 

ইন্তিôকালঃ

তিনি হিজরী ১৫০ সন মুতাবিক ৭৬৭ খ্রিঃ খলিফা মনসুর কর্তৃক প্রয়োগকৃত বিষক্রিয়ার ফলে কারাগাওে ইন্‌িতকাল করেন। তার জানাজয় প্রচুর লোক উপস্থিত থাকায় ৫বার জানাজার নামাজ পড়তে হয়েছিল। তার জানাজায় সর্বশেষ ইমামতি করেন তার পুত্র হাম্মাদ। তাকে খাজরান নামক স্থানে তার শিষ্য ইমাম আবু ইউসুফ ও ইমাম মুহাম্মদের মাঝখানে সমাহিত করা হয়।