ঢাকা, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৮, রবিবার রাত; ০৭:৩২:২৪
বার্তা »
  

নৈরাজ্যকর অবস্থা থেকে পরিত্রাণের জন্য ইসলামী ছাত্রশিবিরের জন্ম লাভ হয়েছে

27 Nov 2011

.

ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের শিক্ষা উপকরণ বিতরন অনুষ্ঠানে হামিদুর রহমান এমপি
নৈরাজ্যকর অবস্থা থেকে পরিত্রাণের জন্য ইসলামী ছাত্রশিবিরের জন্ম লাভ হয়েছে

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ঢাকা মহানগরীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও জাতীয় সংসদ সদস্য এ·এইচ·এম  হামিদুর রহমান আজাদ বলেন, ছাত্ররাজনীতি যখন দলীয় লেজুুড়বৃত্তি এবং সন্ত্রাসের কার্যক্রমে জড়িয়েপড়ে একই দিনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মেধাবী ৭জন ছাত্রকে হত্যা করে ঠিক তখনই জাতিকে মুক্তি দিতে ইসলামী ছাত্রশিবির একটি নেয়ামত হিসেবে আর্বিভূত হয়। এক নৈরাজ্যকর অবস্থা থেকে পরিত্রাণের জন্য ইসলামী ছাত্রশিবিরের জন্ম লাভ হয়েছে। ছাত্রশিবির সাধারণ কোন ছাত্রসংগঠন নয়। এ সংগঠন ইসলামী আদর্শে বিশ্বাসি। ইসলামী ছাত্রশিবির আজ স্বয়ংসর্ম্পূন একটি ইসলামী আন্দোলনের নাম। তারা আজ গোটা জাতির আশা আকাঙ্ক্ষার আশ্রয়স্থলে পরিণত হয়েছে। তিনি ছাত্রশিবিরের ৩৪তম প্রতিষ্ঠা বাষির্কি উপলক্ষে মাসব্যাপি কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ ১২ ফেব্রুয়ারী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের উদ্যোগে আয়োজিত স্ড়্গুল ছাত্রদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
শাখা সভাপতি হাফেজ মুহাম্মদ জহির উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও শাখা সেক্রেটারী শাহ মুহা· মাহফুজুল হক এর পরিচালনায় মগবাজারের আল ফালাহ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এ বিতরন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন, ছাত্রশিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ড· রেজাউল করিম। আল ফালাহ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত শিক্ষা উপকরন বিতরনে প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, ইসলামী ছাত্রশিবির তার ইতিবাচক কার্যক্রমের মাধ্যমে সমাজকে সংস্ড়্গার করতে চায়।  তাই এ সংগঠন আজ সাধারন ছাত্রদের প্রাণের সংগঠনে পরিণত হয়েছে। আমরা  দুনিয়ার কোন নেতার আদর্শকে অনুসরন করিনা। আমাদের নেতা হচ্ছেন মানবতার মুক্তির অগ্রদূত মুহাম্মদ (সাঃ)। ছাত্রশিবির নিজেকে এবং ছাত্রসমাজকে গঠন করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় নিয়মিত ছাত্রকল্যাণ মুলক কাজে করে যাচ্ছে। আজকের শিক্ষা উপকরণ বিতরন তারই একটা অংশ। ছাত্রশিবিরের এই ইতিবাচক কর্মকান্ডের জন্য তারা আজ জাতির আস্থা অর্জন করতে পেরেছে।আজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যখন ওহীর জ্ঞানের পরিবর্তে বস্তুগত জ্ঞান বিতরন করা হচ্ছে, তখন ছাত্রশিবির সম্পুর্ন ইসলামী সিলেবাসের আলোকে জাতি গঠন করার জন্য চেষ্ট চালিয়ে যাচ্ছে।  তাই ছাত্রশিবির এখন একটি স্বতন্ত্র শিক্ষা প্রতিষ্টানে পরিণত হয়েছে। জাতির কর্ণধার হিসেবে সৎ নেতৃত্ব গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে। রাষ্ট্র ও সমাজ যেখানে সৎ ও যোগ্য নেতৃত্ব তৈরি করতে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে সেখানে ছাত্রশিবির প্রমাণ করতে পেরেছে যে ইসলামই পারে শুধু সৎ ও যোগ্য নেতৃত্ব তৈরি করতে। আজ জাতির বিকল্প অবিভাবক হিসেবে ছাত্রশিবির তার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে।
হামিদুর রহমান আজাদ এমপি আরো বলেন, ইসলামের পক্ষে সারা বিশ্বে সাধারণ মানুষের যে গণজাগরন তৈরি হয়েছে তার প্রমান মিশরের আত-তাহরির চত্বর। মিশরের প্রেসিডেন্ট বিরোধী দলকে নিষিদ্ধ এবং নির্যাতন করে তার ত্রিশ বছরের ক্ষমতাকে আকড়ে ধরে রাখতে পারেনি। তেমনি বর্তমান সরকারও বিরোধীদলকে নির্যাতন করে বেশিদিন ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারবেনা। দিনবদলের সময় নয় সরকারকে এখন দিন গুণতে হবে ক্ষমতা ছাড়ার জন্য। নতুন এক আত-তাহরিরের জন্ম হবে এই ঢাকায়। ছাত্রশিবির সাধারণ ছাত্রদের সাথে নিয়ে সেই আন্দোলনের নেতৃত্ব দিবে। ২০১১ সাল হবে আন্দোলন এর সাল। জামায়াত নেতৃবৃন্দকে মুক্ত করার সাল। আমরা রাজপথে আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারের সকল অপকর্মের জবাব দিব ইনশা-আল্লাহ। সেই আন্দোলনের জন্য ছাত্রশিবিরকে এখন থেকেই প্রস্তুতি  নিতে হবে।
শিক্ষা উপকরণ বিতরন অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা জেলা দক্ষিণ সভাপতি ফরিদুল হুদা, মহানগরী দক্ষিণ শিবির নেতা মুঈনুদ্দিন মৃধা, সাদেক বিল্লাহ, আব্দুল্লাহ আল মামুন, শাহাদাত হোসেন, মিজানুর রহমান, হাবিবুল্লাহ বাহার প্রমুখ।
ধন্যবাদান্তে