ঢাকা, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৮, রবিবার রাত; ০৭:৩২:১০
বার্তা »
  

Elmul Hadith

28 Nov 2011

হাদীস কি ?

 হাদীস শব্দের অর্থঃ নতুন কথা বা কাজ।
    পরিভাষায়ঃ মহানবী হযরত মুহাম্মাদ [সাঃ] এর কথা, কাজ ও মৌন সম্মতিকে হাদীস বলে।
    হাদীস শরীয়তের দ্বিতীয় উৎস এবং দলীল। মানব জীবন পরিচালনার জন্য কুরআনের পরেই হাদীসের স্থান। তাই একে ওহীয়ে গায়রে মাতুল বলে।
>    আছারঃ সাহাবায়ে কিরামের কথা ও কাজকে আছার বলে।
>    সনদ ঃ হাদীস বর্ননা কারীদের ধারা বাহিকতাকে সনদ বলে।
>    মতন ঃ হাদিসের মূল কথাকে মতন বলা হয়।
>    রাবীর সংজ্ঞাঃ হাদিস বর্ননা কারীকে রাবী বলা হয়।
>    রেওয়ায়েত এর সংজ্ঞাঃ হাদীসের বর্ণনাকে রেওয়ায়েত বলে।
>    দেরায়েত এর সংজ্ঞাঃ হাদীস বাছাইয়ের পদ্ধতিকে দেরায়েত বলে।
>    সহীহ হাদিসের বৈশিষ্ট্যঃ ১·সনদের ধারাবাহিকতা ২·ন্যায়পরায়ন রাবী ৩· রাবীর তীক্ষ্ন স্মুতি শক্তি ৪·শায হবেনা ৫·মুআল্লাল হবেনা।
>    সহীহাইনঃ বুখারী ও মুসলিমকে একত্রে সহীহাইন বলা হয়।
>    সিহাহ্‌ সিত্তাহঃ ‘ছয়’ টি হাদীস গ্রন্থকে সিহাহ্‌ সিত্তাহ্‌ বলে।
>    হাদীসে কুদসীঃ ঐ হাদীস, যার ভাব আল্লাহর পক্ষ থেকে, আর ভাষা মহানবী হযরত মুহাম্মাদ [সাঃ] এর, তাকে হদীসে কুদসী বলে।
>    সুনানে আরবায়াঃ বুখারী ও মুসলিম ব্যতীত বাকী ‘চাঁর’ টিকে সুনানে আরবায়া বলে।
>    মুত্তাফাকুন আলাইহিঃ একই রাবী কর্তৃক একই হাদীস বুখারী  ও মুসলিম শরীফে  বর্ণনা করা হলে তাকে মুত্তাফাকুন বলে।
>    হাদিস প্রধানত তিন প্রকারঃ-   

১·    কাওলী ২·  ফেলী    ৩· তাকরীরি।